in , , ,

ভাষার দুনিয়া ঠিক কতটা বড়?

বর্তমানে মানুষের সংখ্যা যত দ্রুত বাড়ছে ঠিক সেভাবেই ভাষার সংখ্যাও বেড়েই চলেছে। কারণ, আমরা প্রতিনিয়তই পৃথিবীতে নতুন জিনিস আবিষ্কার করছি আর একইসাথে হাজার হাজার বছরের পুরনো জিনিসগুলো সম্পর্কে শিখছি। আর তারচেয়েও বড় কথা হচ্ছে, ভাষা নিজে থেকেই নিরন্তর পরিবর্তন হচ্ছে। সভ্যতার শুরু থেকে ধরে মানুষের পরিবর্তনের সাথে সাথেই ভাষার পরিবর্তন হচ্ছে। চলুন আজকে সে সম্পর্কেই আলোচনা করা যাক।

বর্তমানে পুরো পৃথিবীজুড়ে প্রায় ৭১১১ টি ভাষা প্রচলিত রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ৫০ মিলিয়ন মানুষ মাত্র ২৩ টি ভাষা ব্যবহার করে থাকে। প্রায় ৪.১ বিলিয়ন মানুষের মাতৃভাষা হচ্ছে এই ২৩টি ভাষা। সারা বিশ্বে যত ভাষা ব্যবহৃত হচ্ছে তার মাঝে প্রায় ৩০ শতাংশ ভাষাই আফ্রিকা অঞ্চলভুক্ত, ৩২ শতাংশ ভাষা এশিয়ার অন্তর্ভুক্ত, ১৫ শতাংশ ভাষা আমেরিকার অন্তর্ভুক্ত, প্যাসিফিক অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে প্রায় ১৯ শতাংশ ভাষা এবং ইউরোপের অঞ্চলের অধীনে রয়েছে ৪ শতাংশ ভাষা। যে ২৩ টি ভাষাতে প্রায় ৪.১ বিলিয়ন মানুষ কথা বলছে, সেই ২৩টি প্রধান ভাষা নিয়ে কিছু কথা না বললেই নয়। এই ২৩টি ভাষার বর্ণনা করা হলো।

১. সবচেয়ে বেশি মানুষ চায়নিজ ভাষায় কথা বলে থাকে, প্রায় ১৩১১ মিলিয়ন। এই চায়নিজ ভাষার বিভিন্ন রুপ রয়েছে যেগুলোতে প্রায় ৩৯টি দেশের মানুষ কথা বলে থাকে। এই ভাষাগুলোর মূল হচ্ছে চায়নিজ। যদিও এর বিভিন্ন শাখা প্রশাখা রয়েছে। যেগুলো হচ্ছে গান (Gan), হাক্কা (Hakka), জু (czh), জিন্যু (Jinyu), মান্দারিন (Mandarin), মিন পেই (Min Bein), মিন ডং (Min Dong), মিন নান (Min Nan), মিন শং (Min Zhong), ফু শিয়াং (Phu Xian), উ (Wuu), শিয়াং (Xiang) এবং ইয়ু (Yue)।

২. স্প্যানিশ ভাষায় প্রায় ৩১টি দেশের ৪৬০ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

৩. ইংরেজি ভাষায় প্রায় ১৩৭টি দেশের ৩৭৯ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

৪. হিন্দী ভাষায় প্রায় ৪টি দেশের ৩৪১ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

৫. আরবি ভাষায় প্রায় ৩১৯ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে। এই আরবি ভাষার বিভিন্ন রুপ রয়েছে যেগুলোতে প্রায় ৫৯টি দেশের মানুষ কথা বলে থাকে। এই ভাষাগুলোর মূল হচ্ছে আরবি। যদিও এর বিভিন্ন শাখা প্রশাখা রয়েছে। যেগুলো হচ্ছে আলজেরিয়ান, শাদিয়ান, ইস্টার্ন ইজিপশিয়ান বেদাওয়ি, ইজিপশিয়ান, গালফ, হাদরামি, হিযায়ি, লিবিয়ান, মেসোপটেমিয়ান, মরোক্কান, নাজদি, নর্থ লেভান্টাইন, নর্থ মেসোপটেমিয়ান, ওমানি, সাঈদি, সানানি, সাউথ লেভানটিয়ান, সুদানিজ, তাঈজি আদেনি এবং তিউনিশিয়ান।

৬. বাংলা ভাষায় প্রায় ৪টি দেশে ২২৮ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

৭. পর্তুগিজ ভাষায় প্রায় ১৫টি দেশে ২২১ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

৮. রাশিয়ান ভাষায় প্রায় ১৯টি দেশে ১৫৪ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

৯. জাপানিজ ভাষায় প্রায় ২টি দেশে ১২৮ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১০. লাহ্নদা বা ইস্ট পাঞ্জাব ভাষায় প্রায় ১১৯ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে। এই লাহ্নদা ভাষার বিভিন্ন রুপ রয়েছে যেগুলোতে প্রায় ৪টি দেশের মানুষ কথা বলে থাকে। এই ভাষাগুলোর মূল হচ্ছে লাহ্নদা। যদিও এর বিভিন্ন শাখা প্রশাখা রয়েছে। যেগুলো হচ্ছে হিন্দকো, পাহারি পটওয়ারি, পাঞ্জাবী এবং সারাইকি।

১১. মারাঠি ভাষায় প্রায় ১টি দেশের ৮৩.১ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১২. তেলেগু ভাষায় প্রায় ২টি দেশের ৮২ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১৩. মালয় ভাষায় প্রায় ৮০.৩ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে। এই মালয় ভাষার বিভিন্ন রুপ রয়েছে যেগুলোতে প্রায় ২০টি দেশের মানুষ কথা বলে থাকে। এই ভাষাগুলোর মূল হচ্ছে মালয়। এর বিভিন্ন শাখা প্রশাখা রয়েছে। যেগুলো হচ্ছে বানজার, ইন্দোনেশিয়ান, মালয়, মালয় সেন্ট্রাল, মালয় জাম্বি, মালয় কেদাহ, মালয় পাত্তানি, মুসি এবং মিনাংকাবাউ।

১৪. তুর্কিশ ভাষায় প্রায় ৮টি দেশের ৭৯.৪ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১৫. কোরিয়ান ভাষায় প্রায় ৬টি দেশের ৭৭.৩ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১৬. ফ্রেঞ্চ ভাষায় প্রায় ৫৪টি দেশের ৭৭.২ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১৭. জার্মাল ভাষায় প্রায় ২৮টি দেশের ৭৬.১ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১৮. ভিয়েতনামিজ ভাষায় প্রায় ৪টি দেশের ৭৬ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

১৯. তামিল ভাষায় প্রায় ৭টি দেশের ৭৫ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে।

২০. উর্দু ভাষায় ৭টি দেশের ৬৮.৬ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

২১. জাভানিজ ভাষায় প্রায় ৩টি দেশের ৮৮.৩ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

২২. ইতালিয়ান ভাষায় প্রায় ১৪টি দেশের ৬৪.৯ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

২৩. গুজরাটি ভাষায় প্রায় ৭টি দেশের ৫৬.৪ মিলিয়ন মানুষ কথা বলে থাকে।

খেয়াল করলে দেখবেন যে, প্রায় ২১৪০টি ভাষা শুধুমাত্র আফ্রিকা অঞ্চলেই ব্যবহৃত হয়। একইভাবে, ১০৫৮টি ভাষা আমেরিকান অঞ্চলে, ২৩০৩টি ভাষা এশিয়া অঞ্চলে, ১৩২২টি ভাষা প্যাসিফিক অঞ্চলে এবং প্রায় ২৮৮টি ভাষা ইউরোপ অঞ্চলে ব্যবহৃত হয়।

ভাষা শেখার জন্য ৭ টি সেরা অ্যাপ্লিকেশন ও ওয়েবসাইট

জেনেটিক গ্রুপ অনুসারে দেখলে দেখা যাবে যে, ১৪২টি মূল ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকেই বর্তমানে প্রায় সবগুলো ভাষাই এসেছে। এদের মধ্যে ৬টি প্রধান ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি হচ্ছে,

১. অ্যাফ্রো-এশিয়াটিক ফ্যামিলি: এই ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকে প্রায় ৩৬৫টি ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। যে ভাষাগুলোতে প্রায় ৭.১৪ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

২. অস্ট্রোনেশিয়ান ফ্যামিলি: এই ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকে প্রায় ১২২৩টি ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। যে ভাষাগুলোতে প্রায় ৪.৬৬ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

৩. ইন্দো-ইউরোপিয়ান ফ্যামিলি: এই ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকে প্রায় ৪৪৫টি ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। যে ভাষাগুলোতে প্রায় ৪৬.৩১ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

৪. নাইজার-কঙ্গো ফ্যামিলি: এই ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকে প্রায় ১৫২৬টি ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। যেই ভাষাগুলোতে প্রায় ৭.৪৩ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

৫. সিনো-তিব্বেতিয়ান ফ্যামিলি: এই ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকে প্রায় ৪৫৩ টি ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। যেই ভাষাগুলোতে প্রায় ১৯.৮২ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

৬. ট্র্যান্স- নিউ গিনিয়া ফ্যামিলি: এই ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলি থেকে প্রায় ৪৭৮ টি ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। যে ভাষাগুলোতে প্রায় ০.০৫ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

সুতরাং দেখা যাচ্ছে যে, পৃথিবীর প্রায় ৪৪৯০ টি ভাষাই এই ছয়টি ল্যাঙ্গুয়েজ ফ্যামিলির অন্তর্ভুক্ত এবং এই ভাষাগুলোতেই প্রায় ৮৫.৪১ শতাংশ মানুষ কথা বলে থাকে।

জানেন কী, কিছু কিছু দেশ রয়েছে যেগুলোতে প্রায় একশয়ের বেশি ভাষা প্রচলিত রয়েছে। একশয়ের বেশি ভাষা আছে এমন দশটি দেশ হচ্ছে পাপুয়া নিউ গিনি (৮৪০টি), ইন্দোনেশিয়া (৭১০টি), নাইজেরিয়া (৫২৪টি), ভারত (৪৫৩টি), ইউনাইটেড স্টেটস (৩৩৫টি), অস্ট্রেলিয়া (৩১৯টি), চায়না (৩০৫টি), মেক্সিকো (২৯২টি), ক্যামেরুন (২৭৫টি) এবং ব্রাসিল (২২৮টি)।

উদ্ভট কিছু প্রোগ্রামিং ভাষার তথ্য

ভাষার গভীরে যেতে থাকলে আপনি দেখতে পাবেন যে, বিভিন্ন ধরণের ভাষা প্রচলিত রয়েছে। যার মধ্যে কিছু ভাষা বর্তমানে সর্বত্র ব্যবহৃত হয় যেগুলোকে বলা হয় জীবিত ভাষা বা ‘লিভিং ল্যাঙ্গুয়েজ’। আবার কিছু ভাষা আছে যেগুলো কয়েক শতাব্দী পুর্বেই ব্যবহার করা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে যেগুলোকে বলা হয় মৃত ভাষা বা ‘এক্সটিঙ্কট ল্যাঙ্গুয়েজ’। এক ধরণের ভাষা রয়েছে যেগুলো কয়েক হাজার বছর পূর্বে ধ্বংস হয়ে গিয়েছে সেগুলোকে বলে পুরনো ভাষা কিংবা ‘অ্যানশায়েন্ট ল্যাঙ্গুয়েজ’। কিছু ভাষা রয়েছে যেগুলো বর্তমানে খুবই কম ব্যবহৃত হয় কিন্তু ইতিহাস যেগুলোকে এখনো ধরে রেখেছে, সেগুলোকে বলা হয় ঐতিহাসিক ভাষা বা ‘হিস্টোরিক ল্যাঙ্গুয়েজ’। এমন কিছু ভাষা হচ্ছে,

১. জীবিত ভাষা: ইংরেজি, বাংলা, জার্মান, আরবি, উর্দু, হিন্দী, হিব্রু ইত্যাদি।

২. মৃত ভাষা: ওসেজ (২০০৫ সাল থেকে মৃত), বিদইয়ারা (২০০৮ সাল থেকে মৃত), ইয়াক (২০০৮ সাল থেকে মৃত), আকা-বু (২০১০ সাল থেকে মৃত), লিভোনিয়ান (২০১৩ সাল থেকে মৃত) ইত্যাদি।

৩. পুরনো ভাষা: আক্কাদিয়ান (২৮০০ বিসিই – ৫০০ সিই), কপ্টিক (১০০ সিই – ১৬০০ সিই), অ্যারামায়িক (৭০০ বিসিই – ৬০০ সিই), হায়রোগ্লিফিক্স (৩৪০০ বিসিই – ৬০০ বিসিই), ল্যাটিন (৮০০ বিসিই – ৭৫ বিসিই), গ্রীক (৮০০ বিসিই – ৩০০ বিসিই) ইত্যাদি।

৪. ঐতিহাসিক ভাষা: মিডল ইংরেজি, সংস্কৃত, ওল্ড ইংলিশ, বিবলিক্যাল হিব্রু ইত্যাদি।

ভাষাই একজন বক্তার প্রধান অস্ত্র। যদি ভাষা না থাকে তাহলে মানুষের চরিত্র কিংবা অবস্থার পরিমাপ করার জন্য হয়তো কিছুই থাকতো না।

এই পোস্টটি মূলত ‘যেসব ভাষা হারিয়ে গেছে (প্রথম পর্ব)‘ এর পরের এবং শেষ পর্ব!

9 Comments

Leave a Reply
  1. I want to show my appreciation to this writer for rescuing me from such a challenge. As a result of searching through the the web and finding suggestions that were not powerful, I was thinking my entire life was done. Being alive devoid of the approaches to the problems you have sorted out through your good article is a crucial case, as well as the kind which could have negatively damaged my career if I had not noticed your web site. Your actual knowledge and kindness in controlling everything was excellent. I am not sure what I would’ve done if I hadn’t discovered such a stuff like this. I am able to now look ahead to my future. Thanks a lot so much for your expert and result oriented guide. I will not be reluctant to endorse the blog to anyone who should have guide about this topic.

  2. Thanks so much for providing individuals with an extremely brilliant possiblity to read in detail from this website. It is often so nice plus jam-packed with a lot of fun for me personally and my office mates to search the blog no less than thrice weekly to find out the fresh issues you have got. And of course, I am just actually fascinated considering the good thoughts you give. Certain 4 facts in this article are in truth the most effective I’ve ever had.

  3. I precisely desired to say thanks again. I am not sure what I could possibly have gone through without the solutions shared by you directly on this area. It was actually a real fearsome circumstance for me, but being able to see the very professional style you resolved the issue forced me to leap with happiness. Now i’m happier for this help as well as sincerely hope you know what a great job you are accomplishing educating other individuals all through your web page. Most probably you’ve never encountered any of us.

  4. I would like to show some appreciation to the writer just for bailing me out of such a dilemma. As a result of surfing throughout the world-wide-web and seeing ways that were not powerful, I assumed my life was well over. Living devoid of the solutions to the difficulties you have solved by means of this guideline is a serious case, as well as those that might have in a wrong way damaged my career if I had not noticed your web page. The knowledge and kindness in maneuvering every aspect was tremendous. I’m not sure what I would’ve done if I had not encountered such a point like this. I’m able to at this moment relish my future. Thanks so much for your impressive and results-oriented guide. I won’t hesitate to endorse your web sites to any individual who will need direction about this topic.

  5. I wish to express appreciation to this writer for rescuing me from this issue. Because of surfing around through the search engines and finding suggestions that were not powerful, I figured my entire life was done. Being alive minus the answers to the problems you’ve solved by means of your good short article is a critical case, and ones that might have adversely affected my career if I had not noticed the blog. Your good know-how and kindness in handling almost everything was priceless. I’m not sure what I would have done if I hadn’t discovered such a solution like this. It’s possible to at this time relish my future. Thanks so much for your professional and sensible help. I won’t hesitate to propose your web sites to anybody who desires counselling on this topic.

  6. I would like to show thanks to the writer just for bailing me out of this issue. Because of surfing around throughout the world-wide-web and getting techniques which are not pleasant, I figured my entire life was gone. Being alive devoid of the strategies to the difficulties you’ve solved all through your write-up is a critical case, as well as the ones which might have badly affected my career if I hadn’t noticed the blog. The mastery and kindness in maneuvering every item was tremendous. I am not sure what I would’ve done if I hadn’t discovered such a step like this. I’m able to at this moment look forward to my future. Thank you so much for the expert and results-oriented help. I won’t hesitate to recommend your blog to anybody who will need recommendations on this subject matter.

  7. I precisely needed to thank you very much again. I am not sure the things I would’ve carried out without the entire basics discussed by you directly on such theme. It seemed to be the troublesome concern in my view, but coming across the very skilled avenue you resolved the issue took me to weep with gladness. Now i am happier for your assistance and have high hopes you really know what a great job your are doing teaching people all through a web site. I am sure you haven’t got to know any of us.

  8. Thank you for each of your work on this web page. My niece enjoys getting into investigation and it’s simple to grasp why. A number of us know all about the powerful manner you give advantageous guidelines on this website and even attract contribution from other people on that topic so our own princess is in fact understanding a great deal. Take advantage of the rest of the year. Your carrying out a brilliant job.

  9. Thank you so much for giving everyone remarkably remarkable opportunity to read from this site. It’s usually so sweet and also full of a lot of fun for me and my office acquaintances to search your website at minimum 3 times in 7 days to read through the fresh issues you have. And lastly, we’re actually fulfilled with all the astonishing tactics served by you. Some two points in this article are truly the simplest we have ever had.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

রেডিওলজিস্ট হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ার উপায়

টুইটার মার্কেটিংয়ের সম্পূর্ণ গাইডলাইন