Source: https://www.standardmedia.co.ke/article/2001292000/five-apps-that-will-pay-you-to-use-them
in , ,

অনলাইন থেকে আয় করার সেরা কিছু মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন – প্রথম পর্ব

বর্তমানে সময়ের সাথে সাথে আমাদের অর্থ সংকটও বেড়েই চলছে। আর সেজন্য আমাদের প্রয়োজন অতিরিক্ত কিছু অর্থ। অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্য বর্তমানে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনগুলো খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। যদি আপনি সময়ের সাথে অতিরিক্ত কিছু অর্থ আয় করতে চান তাহলে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনগুলো ইন্সটল করে ছোটখাটো কাজ শুরু করে দিতে পারেন। চলুন তাহলে জেনে আসি, এমন কিছু মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে যেগুলোর মাধ্যমে খুব সহজেই অতিরিক্ত কিছু অর্থ আয় করা সম্ভব।

ফিল্ড অ্যাজেন্ট

ফিল্ড অ্যাজেন্ট হচ্ছে এমন একটি সফটওয়্যার যেখানে আপনি বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন ধরণের কাজ টাস্ক সম্পন্ন করে আয় করতে পারবেন। এই সফটওয়্যারে আপনাকে বিভিন্ন ধরণের ডেটা সংগ্রহ করার কাজ দেয়া হবে। আপনাকে সেসব ডেটা সংগ্রহ করে অ্যাপ্লিকেশনে ইনপুট করতে হবে। এসব ডেটা সংগ্রহ করার জন্য আপনাকে বিভিন্ন গ্রোসারী শপ কিংবা বিভিন্ন মানুষের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে হতে পারে।

বিভিন্ন ক্যাটাগরির বিভিন্ন ধরণের টাস্ক কমপ্লিট করার জন্য আপনাকে ক্যাটাগরিভেদে অর্থ প্রদান করা হবে। প্রত্যেকটা টাস্ক সম্পন্ন করার জন্য আপনাকে ২ ডলার থেকে ১২ ডলার পর্যন্ত পেমেন্ট দেয়া হবে। পেপাল ও ডিওলার মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে।

বিটওয়াকিং

বিটওয়াকিং হচ্ছে এমন একটি সফটওয়্যার যেখানে আপনি শুধুমাত্র হাঁটাহাঁটি করে আয় করতে পারবেন। এক্ষেত্রে তারা আপনাকে ওয়াকিং ডলার (W$) প্রদান করে থাকে। অর্থাৎ, আপনি যত হাঁটবেন, তত বেশি আপনার ওয়াকিং ডলার জমতে থাকবে। প্রত্যেক ১০ হাজার স্টেপের জন্য আপনাকে ১ ডলার পেমেন্ট দেয়া হবে। পেপাল ও ব্যাংকের মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে। বর্তমানে এই অ্যাপ্লিকেশনের সার্ভিসটি ইউকে, কেনিয়া, মালাওয়ি এবং জাপানের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত।

প্যাক্ট

অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্য অসাধারন একটি সফটওয়্যার হচ্ছে প্যাক্ট। এখানে আপনাকে এক্সারসাইজ ও নিয়মিত উপকারী খাবার খাওয়ার টার্গেট তৈরি করতে হবে এবং যখন সেই টার্গেট পূরণ হয়ে যাবে তখন আপনাকে তারা পেমেন্ট করবে। কিন্তু যদি আপনি সেই টার্গেট পূরণ করতে অসফল হোন তাহলে আপনাকে সফটওয়্যারটিকে অর্থ দিতে হবে। প্রত্যেকটা টার্গেট সম্পন্ন করার জন্য আপনাকে ০.৩০ ডলার থেকে ৩০ ডলার পর্যন্ত পেমেন্ট দেয়া হবে। পেপালের মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে।

স্লাইডজয়

স্লাইডজয় এমন একটি সফটওয়্যার যেখানে আপনি কিছু না করেই আয় করতে পারবেন। স্লাইডজয় মূলত একটি স্ক্রিন লক অ্যাপ্লিকেশন। আপনাকে শুধুমাত্র এটা ইন্সটল করে একটিভ করে রাখতে হবে। স্লাইডজয় আপনার লক স্ক্রিনে বিভিন্ন ধরণের অ্যাডভার্টাইজমেন্ট দেখাবে। আর এই অ্যাড দেখানোর জন্য আপনাকে তারা বেশ কিছু অর্থ পেমেন্ট করবে। প্রত্যেকবার আপনার স্ক্রিন আনলক করার জন্য আপনাকে তারা অর্থ দেবে। সেক্ষেত্রে প্রত্যেক ১০০০ বার স্ক্রিন আনলক করার জন্য আপনাকে ১ ডলার থেকে ৩ ডলার পর্যন্ত পেমেন্ট দেয়া হবে। পেপালের মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে।

ফোপ

আপনি যদি ছবি বিক্রি করে আয় করতে চান তাহলে ফোপ অ্যাপ্লিকেশনটি ইন্সটল করতে পারেন। এটার কাজের ধরণ অনেক সহজ। আপনার স্মার্টফোন দিয়ে ছবি তুলবেন, সেটা ফোপে আপলোড করবেন এবং ফোপ মার্কেটে সেটা বিক্রি করবেন। আপনার আপলোড করা প্রত্যেকটি ছবিই ফোপ বিক্রি করে ১০ ডলারে। কিন্তু আপনাকে পেমেন্ট দেয়া হবে ৫০ শতাংশ অর্থাৎ ৫ ডলার। বাকি ৫ ডলার ফোপ ও তার সাথে সংযুক্ত বিভিন্ন কোম্পানিদের কাছে চলে যায়।

সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে, আপনি একই ছবি বারবার বিক্রি করতে পারবেন। ব্যাংক অফ অ্যামেরিকা, নিভিয়া, ভোডকা এবং পেপসির মতো কোম্পানিগুলো ফোপের থেকে ছবি ক্রয় করে থাকে। প্রত্যেকটা ছবি বিক্রি হওয়ার পর পেপালের মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে।

মোবি

মোবি হচ্ছে এমন একটি সফটওয়্যার যেখানে আপনি বিভিন্ন কোম্পানির ব্যবসায়িক অবস্থা উন্নত করার কাজ করে আয় করতে পারবেন। সফটওয়্যারটির কার্যক্রমগুলো মূলত আমেরিকাতে অন্তর্ভুক্ত। এই অ্যাপ্লিকেশন আপনাকে বিভিন্ন স্টোর পরিদর্শনের জন্য, ছবি তোলার জন্য, রিভিউ লেখার জন্য এবং কাস্টোমার সার্ভিসের কাজ করার জন্য অর্থ দিয়ে থাকে। আপনার দেয়া এসব তথ্য থেকে লোকাল ব্যবসাগুলো সম্পর্কে অ্যামেরিকান বিজনেস গ্রুপগুলো উপকৃত হয়ে থাকে। এই অ্যাপ্লিকেশন থেকে আপনি ৫ ডলার থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

আইবোটা

আইবোটা আপনাকে ক্যাশব্যাক অফার দিয়ে থাকে। অর্থাৎ আপনি যদি কোনো স্টোর থেকে কোনো পণ্য ক্রয় করে থাকেন তাহলে সেই পণ্যে নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্যাশব্যাক দিয়ে থাকে এই সফটওয়্যারটি। আপনাকে যেটা করতে হবে সেটা হচ্ছে, আইবোটা সাপোর্ট করে এমন গ্রোসারি শপ থেকে কোনো পণ্য ক্রয় করার পর সেই পণ্যের রিসিটের ছবি তুলে সেটা আইবোটাতে আপলোড করলে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আপনার অ্যাকাউন্টে পেমেন্ট দেয়া হবে। আইবোটা মূলত ২৪১ টি দোকানের সাথে সংযুক্ত। ভেনমো ও  পেপালের মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে।

মাইপিক

মাইপিক আপনাকে ছবি বিক্রি করে আয় করার সুযোগ দিয়ে থাকে। এটা মূলত এমন একটি মার্কেটপ্লেস যেখানে আপনার ছবিগুলোকে বিভিন্ন পণ্যে রূপান্তরিত করা হয়। যদিও অ্যাপ্লিকেশনটি এখন পর্যন্ত শুধুমাত্র আইওএস ইউজারদের জন্যই তৈরি করা হয়েছে। এখানে আপনাকে প্রত্যেকটি ছবির জন্য ২০ শতাংশ পেমেন্ট করা হবে। অর্থাৎ, আপনার কোনো ছবি যদি ১০০ ডলারে বিক্রি করা হয় তাহলে আপনি পাবেন ২০ ডলার ও মাইপিক কোম্পানি পাবে ৮০ ডলার। ছবি বিক্রি হওয়ার পর পেপালের মাধ্যমে আপনাকে পেমেন্ট পাঠানো হবে।

গুগল অপিনিয়ন রিওয়ার্ডস

গুগল অপিনিয়ন রিওয়ার্ডস আপনাকে বিভিন্ন ধরণের সার্ভে সম্পন্ন করার জন্য অর্থ দিয়ে থাকে। এই সফটওয়্যারে আপনাকে বিভিন্ন ধরণের প্রশ্নের উত্তর ও মতামত প্রদান করতে হবে। প্রত্যেকটি প্রশ্নের মতামত ও জবাব দেয়ার জন্য আপনাকে ০.১০ ডলার থেকে ১ ডলার পর্যন্ত পেমেন্ট করা হবে। পেমেন্ট সরাসরি আপনার গুগল প্লে অ্যাকাউন্টে যুক্ত করা হবে।

6 Comments

Leave a Reply

5 Pings & Trackbacks

  1. Pingback:

  2. Pingback:

  3. Pingback:

  4. Pingback:

  5. Pingback:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ক্ল্যাভিক্যুলা সলোমনিস রেজিস বা দ্যা কি অফ কিং সলোমন

কীভাবে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যের স্টুডেন্ট ভিসা পাবেন