Source: https://brandgy.com/offsite-marketing/use-twitter-offsite-marketing-grow-brand/
in , ,

টুইটার মার্কেটিংয়ের সম্পূর্ণ গাইডলাইন

প্রত্যেক মাসে ৩১৩ মিলিয়নের বেশি একটিভ ইউজার নিয়ে টুইটার বর্তমানে মার্কেটারদের জন্য অসাধারণ একটি প্লাটফর্ম হিসেবে দাঁড়িয়েছে। টুইটারে নিজের কিংবা কোম্পানির অ্যাকাউন্ট খুলে কাস্টোমারদের কাছে টুইট করাটা অনেক সহজ একটা কাজ। কিন্তু যে কাজটা সহজ নয় সেটা হচ্ছে, টুইটারে ধীরে ধীরে আপনার কিংবা আপনার কোম্পানির ফলোয়ার বাড়তে শুরু করবে আর তারপর সেই বাড়তি ফলোয়ারের সাথে সাথেই নির্দিষ্ট কাস্টোমারদের কাছে পৌঁছাতে হবে আপনাকে। আর একইসাথে সেলসের লিড বাড়ানোর জন্যেও কাজ করে যেতে হবে। আর সেজন্যে টুইটার মার্কেটিংয়ের এই গাইডলাইন লিখতে বসেছি।

 

টুইটার কেনো আলাদা?

একজন মার্কেটার হিসেবে প্রত্যেক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের দিকে আপনার যথেষ্ট মনোযোগ থাকতে হবে। আর সেজন্যে প্রত্যেক সোশ্যাল মিডিয়াতেই আপনার অ্যাপ্রোচ হত হবে ভিন্ন ভিন্ন। ফেসবুকে যেভাবে কাস্টোমারদের সাথে কথা বলেন কিংবা তাদের আকৃষ্ট করেন সেভাবে টুইটারে কথা বললে কিংবা একইভাবে ইন্সটাগ্রামে চ্যাট করলে হবে না!

 

টুইটারের যেসব পয়েন্টগুলোকে মার্কেটিংয়ে রূপান্তরিত করতে পারবেন,

(১) তথ্য ও কন্টেন্ট শেয়ার করা

(২) বিভিন্ন ধরণের প্রমোশনাল অ্যাক্টিভিটিসের মাধ্যমে কাস্টোমার বাড়ানো

(৩) কনজ্যুমারের সাথে সরাসরি ইন্টারেকশন করা

(৪) নেটওয়ার্কিং করা

(৫) ব্র্যান্ড হিসেবে গড়ে ওঠা

খেয়াল করলে দেখবেন যে, এসব বেশিরভাগ কাজই করতে হবে সরাসরি ইন্টারেকশনের মাধ্যমে। এটাই হচ্ছে ইন্সটাগ্রাম কিংবা পিন্টারেস্টের সাথে টুইটারের পার্থক্য। টুইটারে সবকিছুই সোজাসাপ্টা কথা বলার মাধ্যমে কিংবা টুইট করার মাধ্যমে ঘটিত হয়।

 

টুইটারে চ্যাটিং করার নিয়ম

মার্কেটাররা অনেক বছর ধরেই একই প্রশ্ন করে আসছেন, আর সেটা হচ্ছেঃ ‘আমি কীভাবে টুইটারে আরো বেশি ফলোয়ার পাবো?’ কিন্তু মূলত যে প্রশ্নটা করা উচিত সেটা হচ্ছেঃ ‘আমি কীভাবে টুইটারে আরো বেশি একটিভ ফলোয়ার পাবো?’ এর সবচেয়ে অসাধারন আর কাজের একটি পদ্ধতি হচ্ছে ‘টুইটার চ্যাট!’

 

টুইটার চ্যাটে আপনার লাভ হবে কীভাবে? টুইটার চ্যাটে শুধুমাত্র তারাই থাকে যারা নিজের খুশিতে, নিজের ইচ্ছেমতো টুইটারে থাকতে চায় বা পছন্দ করে। তারা শুধুমাত্র মাসে কিংবা সপ্তাহে একবার নামকাওয়াস্তে ঢোকার জন্য আসে না, তারা মূলত নেটওয়ার্ক তৈরি করার উদ্দেশ্যেই টুইটারে লগইন করে থাকে। এই ধরণের মানুষের সাথে টুইটারে যুক্ত হলে ও নিয়মিত কথা বললে (চ্যাট করলে) তারা আপনার সাথে বেশ ভালো একটা সম্পর্ক তৈরি করবে। আর একইসাথে তারা আপনার করা টুইটের রিপ্লাই দেবে ও রিটুইট করবে।

 

তবে শুধু শুধু যেকোনো মানুষের সাথেই টুইটারে কথা বললে কাজের কাজ কিছুই হয়তো হবে না। আর সেজন্যে আপনাকে আপনার নিজস্ব ইন্ডাস্ট্রি বেছে নিয়ে তারপরে চ্যাটিং করার শুরু করতে হবে। এখানে আমি টুইটার চ্যাটের একটি ক্যালেন্ডার দিয়ে দিচ্ছি, যেখান থেকে আপনি নিজের পছন্দমতো ইন্ডাস্ট্রি বাছাই করে টুইটার চ্যাটে যুক্ত হতে পারবেন।

 

টুইটার চ্যাটে মেনশন করতে ভুলবেন না। কারণ এতে করে অন্যান্য ইউজাররাও আপনাকে মনে রাখতে বাধ্য হবে। আর সবসময় একই ইন্ডাস্ট্রিতে টুইটার চ্যাট করবেন না। চেষ্টা করবেন আপনার বাছাই করা ইন্ডাস্ট্রির আশেপাশে কোনো ইন্ডাস্ট্রি আছে কি না। থাকলে সেটাকে বাছাই করে কাজ শুরু করতে পারেন।

 

অফার ও ডিসকাউন্ট দেয়ার চেষ্টা করুন

নির্দিষ্ট দিনগুলোতে (যেমন: হ্যালোউইন, ক্রিসমাস, ঈদ, রমজান ইত্যাদি) আপনার কোম্পানির পক্ষ থেকে টুইটারে অফার ও ডিসকাউন্টের ব্যবস্থা করতে পারেন আর সেটাকে অবশ্যই টুইট করবেন ও বিভিন্ন ফলোয়ারের ইনবক্সে সেন্ড করে দেবেন। আর যাদের সাথে আপনার ইন্টারেকশন বেশি হয়েছে তাদের বলবেন, এই অফার ও ডিসকাউন্টের টুইটগুলো যাতে তারা রিটুইট করে। এতে করে টুইটটি আরো বেশি মানুষের কাছে অর্গানিকভাবেই রিচ হবে।

 

নিজের কোম্পানির নামে হ্যাশট্যাগ তৈরি করুন

এটাকে অনেকেই বাদ দিয়ে মার্কেটিংয়ের চিন্তা করেন। কিন্তু জানেন কি? টুইটার আর ইন্সটাগ্রাম হচ্ছে হ্যাশট্যাগের জন্য সবচেয়ে বেশি প্রচলিত মাধ্যম। কিন্তু আমরা ফেসবুকে হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করি অথচ টুইটার কিংবা ইন্সটাগ্রামে হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করি না।

হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করার জন্য আপনার কোম্পানির নামে কিংবা যেকোনো কোড দিয়ে হ্যাশট্যাগ লিখুন (এভাবে: #MuntasirMahdi, #MahdisOnlineJournal)। আর এই হ্যাশট্যাগে যত বেশি সম্ভব ক্লিক আনানোর চেষ্টা করুন। যত বেশি মানুষ আপনার কোম্পানির হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করবে তত বেশিই আপনার হ্যাশট্যাগ ব্যবহৃত হবে। যার ফলে আপনার কোম্পানি খুজে পাওয়ার জন্য আলাদা করে টুইটারে এসইও করতে হবে না।

 

টুইটগুলোকে আরো সুন্দর করে সাজিয়ে তুলুন

অনেকেই ফেসবুকের স্ট্যাটাস কিংবা পিন্টারেস্টের পিনের মতো, টুইটারেও স্ট্যাটাসের বন্যা বইয়ে থাকেন। কিন্তু টুইটারে টুইট করার জন্য আপনাকে শব্দের সংখ্যার পাশাপাশি আরো অনেক কিছুর উপর গুরুত্ব দিতে হবে। যেমন,

(১) টুইটারে টুইট করার জন্য নির্দিষ্ট শব্দসংখ্যা থাকে, যার ফলে চেষ্টা করবেন কম কথায় পুরো ব্যাপারটা বোঝাতে।

(২) যা ইচ্ছা টুইট করার চেয়ে টুইট না করাই ভালো।

(৩) সপ্তাহে নির্দিষ্ট কিছু দিন রাখবেন, যেদিন শুধুমাত্র ছবি পোস্ট করবেন। এটা হতে পারে, অফারের ব্যানার কিংবা কোনো উক্তি কিংবা কোনো তথ্য ইত্যাদি!

(৪) শুধু লিংক দিয়েই টুইট করে দিবেন না। কিসের লিংক সেটা এক লাইনে কিংবা দুই লাইনে বোঝানোর চেষ্টা করুন। আর তারপরে লিংক দিয়ে টুইট করুন।

(৫) প্রশ্নবোধক বা প্রশ্নযুক্ত টুইট করার চেষ্টা করবেন। এতে রিপ্লাই আসার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

(৬) আপনার টুইটে কারো রিপ্লাই আশা করার আগে আরেকজনের টুইটে রিপ্লাই দেয়া শিখুন। একইভাবে আপনার টুইটকে রিটুইট করাতে চাইলে আরেকজনের টুইটকেও রিটুইট করুন। নেটওয়ার্ক এভাবেই তৈরি হয়। মার্কেটাররা এভাবেই বেঁচে থাকে। এটাকে বলে, ‘ফ্যাভার!’

 

নিচে আমি একটি ছবি দিচ্ছি যেখানে আপনারা দেখতে পাবেন যে, কোন ধরণের টুইটে কত শতাংশ মানুষ ইন্টারেক্ট করে থাকেঃ

 

“একমাস ধরে টুইট করছি, একমাসে হাজার হাজার ফলোয়ার তৈরি করলাম কিন্তু তারপরেও কিচ্ছু হচ্ছে না!” এই ধরণের চিন্তাভাবনা বা মতামত যার মাঝে এসেছে তারা দয়া করে নিচের পয়েন্টগুলোর সাথে মিলিয়ে দেখুন তো, আপনার কি এভাবেই এগিয়েছিলেন?

প্রথম ধাপঃ একটিভ ও ইন্টারেকটিভ কাস্টোমার বা ফলোয়ার যুক্ত করা

দ্বিতীয় ধাপঃ আপনার ব্যবসার প্রতিদ্বন্দ্বীদের মনিটরিং করা, তাদের স্ট্র্যাটেজি খুঁজে বের করা।

তৃতীয় ধাপঃ নিজের ব্যবসাকে ব্র্যান্ড হিসেবে তৈরি করা। প্রফেশনালি টুইটার প্রোফাইলকে সাজানো

চতুর্থ ধাপঃ কাস্টোমারদের টেক্সতের রিপ্লাই করা। যত দ্রুত সম্ভব হয়!

পঞ্চম ধাপঃ লিড জেনারেশনের দিকে খেয়াল রাখা!

ষষ্ঠ ধাপঃ ওয়েবসাইটে ট্র্যাফিকের সংখ্যা বাড়ানো!

সপ্তম ধাপঃ একই ইন্ডাস্ট্রির অন্যান্য কাস্টোমারদের সাথে ইন্টারেকশন করা।

 

করেছেন কি?! উপরে যেভাবে ধাপগুলো দেয়া আছে, সেভাবেই কি আপনার টুইটারের মার্কেটিং করেছেন?! যদি না করে থাকেন তাহলে “একমাস ধরে টুইট করছি, একমাসে হাজার হাজার ফলোয়ার তৈরি করলাম কিন্তু তারপরেও কিচ্ছু হচ্ছে না!” এই ধরণের কথাবার্তা বলে লাভ নেই। টুইটারে যেভাবে ইচ্ছা সেভাবে ফলোয়ার তৈরি করলে কিংবা টুইট করলেই আপনার কাস্টোমার বাড়বে না। এই কথাটা মনে রাখবেন!

 

উপরের সাতটা ধাপ মেনে চলার সময় আপনাকে নিচের পরিসংখ্যান অনুযায়ী কাজ করতে হবে,

  • মেনশনের পরিমাণ ৫০% বৃদ্ধি করুন।
  • অন্যের টুইট রিটুইট করার পরিমাণ ১৫% বৃদ্ধি করুন।
  • রেসপন্স রেইট ৯০% এর বেশি রাখা চেষ্টা করুন।
  • রেসপন্সের সময় কমিয়ে ১০ মিনিটের নিচে নিয়ে আসুন।
  • প্রত্যেক মাসে অন্তত ২০টি কাস্টোমার আনার চেষ্টা করুন।
  • টুইটারের রেফারাল ট্র্যাফিক ৩০% বৃদ্ধি করার চেষ্টা করুন।
  • টুইটারে কমপক্ষে ৩০০ জন একটিভ ফলোয়ার রাখার চেষ্টা করুন।

 

উপরের সিস্টেম চলতে থাকলে আশা করা যায় যে, কিছুদিনের মধ্যে বেশ ভালো পরিমাণ ট্র্যাফিক ও সেল পাবেন টুইটার থেকে। কোনো প্রশ্ন থাকলে নিচের কমেন্ট বক্সে করতে পারেন!

ভালো থাকুন, ভালো রাখুন!

 

 

8 Comments

Leave a Reply
  1. I have to voice my affection for your kindness for those people who actually need guidance on in this situation. Your special dedication to passing the solution all-around had become exceptionally valuable and have consistently enabled girls much like me to get to their ambitions. Your personal valuable instruction indicates a great deal to me and even more to my fellow workers. Thanks a ton; from all of us.

  2. Thanks so much for providing individuals with an exceptionally marvellous chance to discover important secrets from this site. It is often so good and also stuffed with a lot of fun for me and my office mates to visit your web site at minimum 3 times in 7 days to find out the newest guides you have. And lastly, we’re always amazed with all the striking points you give. Some 4 areas on this page are undeniably the most effective I’ve had.

  3. I simply wished to thank you very much once more. I do not know the things I could possibly have taken care of in the absence of the type of creative concepts discussed by you relating to this subject. Entirely was a real traumatic matter in my opinion, however , understanding this expert approach you dealt with that made me to weep with fulfillment. Now i am happy for your information and then expect you realize what a powerful job you are carrying out teaching the rest via your blog post. I am sure you haven’t encountered all of us.

  4. I intended to post you the little bit of word to be able to say thanks a lot the moment again for your personal unique suggestions you’ve shown in this article. This is simply extremely generous of you to convey freely exactly what some people would’ve offered as an e book in order to make some dough for themselves, notably considering the fact that you could possibly have done it in case you wanted. The smart ideas also acted as the good way to be sure that the rest have the same zeal like my very own to learn more and more when considering this problem. I think there are millions of more pleasurable periods up front for folks who scan your website.

  5. I together with my pals ended up checking out the best tips and hints on the website then the sudden I got an awful suspicion I never expressed respect to the website owner for those secrets. All the young men had been so thrilled to study them and have now extremely been taking advantage of those things. Many thanks for simply being well kind and also for finding certain remarkable ideas millions of individuals are really desirous to be aware of. Our own honest regret for not expressing gratitude to you earlier.

  6. I precisely wanted to appreciate you again. I’m not certain the things that I could possibly have achieved without the type of creative ideas contributed by you relating to such a question. It became a very troublesome circumstance for me personally, nevertheless viewing your professional tactic you handled the issue made me to weep for joy. I am happier for your service as well as expect you realize what a powerful job you are always carrying out training the rest via your website. I am sure you have never encountered any of us.

  7. I simply had to thank you so much yet again. I am not sure the things I would’ve done without these smart ideas provided by you concerning such topic. It actually was a traumatic dilemma for me personally, however , being able to see a well-written form you treated the issue took me to weep over happiness. I’m just happier for your advice and thus pray you realize what a great job you were accomplishing training many people through your web blog. Most probably you’ve never come across all of us.

  8. I actually wanted to compose a brief word so as to say thanks to you for all the lovely techniques you are giving here. My extended internet research has at the end been recognized with incredibly good details to go over with my relatives. I ‘d repeat that many of us readers actually are undoubtedly lucky to dwell in a fantastic site with so many marvellous professionals with very helpful opinions. I feel very much blessed to have discovered the webpages and look forward to many more amazing minutes reading here. Thank you again for all the details.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভাষার দুনিয়া ঠিক কতটা বড়?

ভোকেশনাল পেশা ও ক্যারিয়ার শিক্ষার গুরুত্ব