Source: http://www.creotechsolutions.net
in , , , ,

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শিখে কেমন আয় করা যায়?

বর্তমানে ইন্টারনেট এর ৬৩ শতাংশ মোবাইলের দখলে। বিলিয়ন ডলারের মার্কেট হচ্ছে এই মোবাইল অ্যাপ মার্কেট। আমেরিকার প্রাপ্ত বয়স্করা দৈনিক প্রায় ৬ ঘণ্টা মোবাইল অ্যাপ নিয়ে পড়ে থাকে। ফরচুন৫০০ নামক কোম্পানির পুরোটাই এখন মোবাইল অ্যাপ দিয়ে নিজেদের ব্যবসায করছে। ২০২০ সালের মধ্যে মোবাইল অ্যাপের বাজার ১৮৮.৯ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে।

যদিও মোবাইল অ্যাপ এতটা উন্নত কিন্তু ওয়েবসাইটের দখলেও প্রায় ৩৭ শতাংশ মার্কেট রয়েছে। সুতরাং, বুঝতেই পারছেন, ওয়েবসাইটও কোনো অংশে পিছিয়ে নেই।

মোবাইল অ্যাপের মধ্যে সবার উপরে জায়গা করে নিয়েছে অ্যান্ড্রয়েড। আমেরিকাতে এখন একজন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপারের গড় বেতন প্রায় ৯৭ হাজার ডলার, প্রতি বছর।

কি কি উপায়ে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে আয় করা যায়? চলুন জেনে নেয়া যাক!

(১) অ্যাপের মধ্যে বিজ্ঞাপন – বেশিরভাগ অ্যাপের আয় হয় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। অ্যাপের বিজ্ঞাপনগুলো গুগলের মাধ্যমে আসে আর তার বিনিময়ে গুগল পেমেন্ট করে।

(২) অ্যাপের ফিচার বিক্রি – ডেভেলপাররা অ্যাপের সকল সুবিধা বিনামূল্যে রাখেন না। কিছু কিছু ফিচার থাকে যা কিনতে হয়। এর মাধ্যমেও ভালো আয় করা যায়।

(৩) অ্যাপ বিক্রয় – অনেক গুরুত্বপুর্ন অ্যাপ বিনামূল্যে পাওয়া যায় না। সেগুলো কিনে ব্যবহার করতে হয়। অ্যাপ বিক্রয়ের মাধ্যমে অনেক আয় করা যায়।

(৪) রেফারেল মার্কেটিং – অ্যাপের মধ্যে রেফারেল কোম্পানির লিঙ্ক দেখানোর মাধ্যমেও ভালো আয় হয়। যারা এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে জানেন, তারা এটা ভালো বুঝতে পারবেন।

এছাড়াও অ্যাপ ডেভেলপাররা অনেক ভালো বেতনে বিভিন্ন ফার্মেও চাকুরী করতে পারেন।

আমরা বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা না শুনলে বিশ্বাস করতে চাই না। তাই না? চলুন একটা বাস্তব অভিজ্ঞতা জেনে নেয়া যাক।

ভারতীয় একজন অ্যাপ ডেভেলপারের কথা বলি। সে তেমন কোন বড় মাপের ডেভেলপার না (তার মতে)। সে একটি অ্যাপ ডেভেলপ করেছে, যার মাধ্যমে মোবাইল ফোনের রুট পরীক্ষা করা যায়। ২০১৭য়ের মাঝামাঝিতে এই অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোরে তুলে দেয় সে। এ পর্যন্ত তার এই একটি অ্যাপ ২৮ হাজারবার ডাউনলোড হয়। সে তার অ্যাপে বিজ্ঞাপন এবং অ্যাপের ফিচার বিক্রি করে প্রতিদিন প্রায় ২০-৩০ ডলার আয় করে এবং এর জন্য তাকে প্রতিদিন কাজও করতে হয় না। প্রতি মাসে ২/১ বার অ্যাপ আপডেট করে শুধু।

আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলবেন আর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করবেন না? তা হবে না। আপনি, আমি আর আমরা সবাই-ই এখন বাধ্য মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে। ব্যক্তিগতভাবে আমার কাছে মনে হয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট অনেক স্মার্ট একটি পেশা। যদিও এটা বেশ কঠিন একটি কাজ, ওয়েব ডেভেলপেমেন্টের চেয়ে। এই সেক্টর নিয়ে সত্যিই আমাদের গুরুত্ব দেওয়া উচিৎ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে ব্যবসা বাড়ানোর কৌশল

পেইড টু পে মার্কেটপ্লেসঃ কী ও কীভাবে?