Source: https://artdesign.rit.edu/schools/design
in ,

আর্ট ও ডিজাইন সেক্টরের আইটিতে ক্যারিয়ার গড়ুন

আর্ট ও ডিজাইনে ক্যারিয়ার গড়ার পূর্বে আপনাকে আর্ট, ডিজাইন, ক্রাফট, ফ্যাশন, কম্পিউটার সায়েন্স অথবা গ্রাফিক্স ডিজাইনের সাথে সম্পর্কিত বিষয়ে পড়াশোনা করতে হবে। আর্ট ও ডিজাইন খাতে আইটিতে ক্যারিয়ার গড়ার অনেক সুযোগ রয়েছে। যেকোন মেয়াদের কোর্স কিংবা ডিগ্রি গ্রহণ করেই এই খাতে ক্যারিয়ার গড়া সম্ভব। চলুন জেনে আসা যাক, এমন কিছু চাকরি সম্পর্কে, যেগুলো দ্বারা আর্ট ও ডিজাইন খাতে ক্যারিয়ার গড়া সম্ভব।

অ্যানিমেটর

আর্ট ও ডিজাইন খাতে একজন অ্যানিমেটর মূলত বিভিন্ন ধরনের ইমেজ ফ্রেমিং, টুডি ও থ্রিডি অ্যানিমেশন মডেলিং এবং কম্পিউটার জেনারেটেড অ্যানিমেশন তৈরি করে থাকেন। একজন অ্যানিমেটর হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে, আপনার যেসকল দক্ষতা থাকতে হবে, সেগুলো হচ্ছে,

  • কম্পিউটার জেনারেটেড ইমাজেরি বা সিজিআইয়ের উপর কাজ করার পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • ক্রিয়েটিভ কনসেপ্টে অ্যানিমেশন তৈরি করার ধারণা থাকতে হবে।
  • টুডি স্কেচ, আর্টওয়ার্ক ও ইলাস্ট্রেশন তৈরি করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • মডেল ডিজাইন, ব্যাকগ্রাউন্ড ডিজাইন, ক্যারেক্টার, অবজেক্ট এবং অ্যানিমেশন এনভায়রনেমেন্ট তৈরি করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • প্লাস্টার, তৈল চিত্র, মডেলিং ক্লে, অ্যাক্রিলিকস ব্যবহার করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • টেকনিক্যাল সফটওয়্যার প্যাকেজ, ফ্ল্যাশ, থ্রিডিএস ম্যাক্স, মায়া, লাইটওয়েভ, সফট ইমেজ এবং সিনেমা ফোর ডিয়ের মতো সফটওয়্যারগুলোর ব্যবহার সম্পর্কে সম্মক ধারনা থাকতে হবে।
  • ফ্রেম বাই ফ্রেম ভিজ্যুয়াল, সি প্লাস প্লাস গ্রাফিক্স ও ডট নেট ফ্রেমওয়ার্ক সম্পর্কে জানতে হবে।

ব্রডকাস্ট ডেভেলপার

আর্ট ও ডিজাইন খাতে একজন ব্রডকাস্ট ডেভেলপার মূলত বিভিন্ন প্রোগ্রাম ও অ্যানিমেশনের ভয়েস ওভার ডেভেলপিংয়ের কাজ করে থাকেন। একজন ব্রডকাস্ট ডেভেলপার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে, আপনার যেসকল দক্ষতা থাকতে হবে,

  • বিভিন্ন প্রোগ্রাম ও অ্যানিমেশন সম্পর্কে গবেষণা ও অ্যানালাইসিস করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • স্ক্রিপ্ট রাইটিং ও এডিটিং সম্পর্কে দক্ষ হতে হবে।
  • ট্র্যাফিক, প্রোগ্রাম ও নেটওয়ার্কিংয়ের উপর যথেষ্ট জ্ঞান থাকতে হবে।
  • ভিজ্যুয়াল ব্যাসিক, সি প্লাস প্লাস, ভয়েস ওভার প্রোগ্রামের উপর জ্ঞান থাকতে হবে।
  • বিভিন্ন প্রোগ্রামের মধ্যে লিংক বিল্ডিংয়ের কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • কম্পিউটার, টেলিভিশন ও রেডিও হার্ডওয়্যার সম্পর্কে দক্ষ হতে হবে।

ফ্যাশন ডিজাইনার

একজন ফ্যাশন ডিজাইনার মূলত বিভিন্ন অ্যানিমেশন ও মডেলের জন্য ফ্যাশনেবল পোশাক ও আর্টওয়ার্ক তৈরি করে থাকেন। একজন ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে আপনার যে সকল দক্ষতা থাকতে হবে, সেগুলো হচ্ছে,

  • কম্পিউটারের সকল ধরনের ডিজাইন সম্পর্কিত সফটওয়্যার ও ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে দক্ষ হতে হবে।
  • মাইক্রোসফট পেইন্ট, অফিস স্যুইট, লিবরা পেইন্ট, ফটোশপ ও ইলাস্ট্রেটরে কাজ করার পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • অটোক্যাড ও থ্রিডি মডেলিং সম্পর্কে সম্যক ধারণা থাকতে হবে।
  • গুগল ট্রেন্ড ও ইয়াহু ট্রেন্ডিং নিউজ ব্যবহার করায় দক্ষ হতে হবে এবং ফ্যাশন ট্রেন্ড সম্পর্কে জানতে হবে।
  • ফ্যাশনেবল পোশাকের মার্কেট প্রাইস, মার্কেট অ্যানালাইসিস ও মার্কেট রিসার্চ করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • ফ্যাব্রিক্স, ট্রিমস, ফাস্টেনিংস এবং অ্যাম্বেলিশমেন্ট সম্পর্কে জানতে হবে।
  • প্রযুক্তির মাধ্যমে পণ্যের প্যাটার্ন তৈরির ব্যাপারে অভিজ্ঞ হতে হবে।
  • গার্মেন্ট ক্রিয়েশন, ফিটিং ও অ্যাডাপ্টেশন সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে।

গ্র্যাফিক্স ডিজাইনার

আর্ট ও ডিজাইন খাতে, একজন গ্র্যাফিক্স ডিজাইনার মূলত বিভিন্ন ধরনের গ্র্যাফিক্যাল (ছবি ও ভিডিও নিয়ে) কাজ করে থাকেন। একজন গ্র্যাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে, আপনার যে সকল দক্ষতা থাকতে হবে, সেগুলো হচ্ছে,

  • গ্রাফিক্যাল পণ্যের দ্বারা ব্যবসা খাতের ব্যবহার সম্পর্কে পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • ক্লায়েন্টের কনসেপ্টের ওপর ভিত্তি করে নতুন ডিজাইন তৈরি করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • ইন্টারেকটিভ ডিজাইন ও ক্রিয়েটিভ থিংকিং করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • মিডিয়া ইনক্লুশন সফটওয়্যার ও গ্রাফিক্যাল ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনে কাজ করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • কম্পিউটার গ্রাফিক্স, ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর, ইনডিজাইন এবং থ্রিডি ও টুডি মডেলিংয়ে কাজ করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • এইচটিএমএল, সিএসএস, সি প্লাস প্লাস গ্রাফিক্স, পাইথন গ্রাফিক্স ও গ্রাফ প্রোগ্রামে কাজ করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • অটোক্যাড ও গ্রাফিক্যাল প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে অভিজ্ঞ হতে হবে।
  • ইলাস্ট্রেশন, ইনফোগ্রাফিক্স, কাভার লেটার, ইমেইল হেডার, লোগো, পোস্টার, সোশ্যাল মিডিয়া গ্রাফিক্স এবং ব্যানার তৈরিতে পারদর্শী হতে হবে।

ইলাস্ট্রেটর

একজন ইলাস্ট্রেটর মূলত বিভিন্ন ধরনের ইমেজ ও ভিডিও আইডিয়াকে  বাস্তব চিত্রে পরিণত করে থাকেন। একজন ইলাস্ট্রেটর হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে, আপনার যেসকল দক্ষতা থাকতে হবে,

  • ব্যবসা খাতে ইমেজ ও ভিডিও আইডিয়া কাজে লাগানোর অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • বিভিন্ন ধরনের স্টাইল, ডিজাইন ও আর্টওয়ার্ক সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে।
  • ইলাস্ট্রেটশন, আর্টওয়ার্ক, অপ্টিমিস্টিক ইমেজ ক্রিয়েশন করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • কম্পিউটার গ্রাফিক্স, ক্যাড, ইমেজ সাইজ, কালার ও এলিমেন্ট সম্পর্কে দক্ষ হতে হবে।
  • পোস্টার, স্টোরিবোর্ড, প্রেস অ্যাডভার্টাইজিংয়ে পারদর্শী হতে হবে।
  • বই, ব্রাউসার, ক্যাটালগ ইত্যাদি তৈরিতে পারদর্শী হতে হবে।
  • ম্যাগাজিন, পত্রিকা ও কমিকস ডিজাইন করায় পারদর্শী হতে হবে।

প্রিন্ট মেকার

একজন প্রিন্টমেকার মূলত বিভিন্ন ধরনের ইচিং, লিথোগ্রাফি ও সার্ফেস ইমেজ তৈরি করে থাকেন। একজন প্রিন্টমেকার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে, আপনার যেসকল দক্ষতা থাকতে হবে, সেগুলো হচ্ছে,

  • প্রিন্টমেকিং, ইচিং, লিথোগ্রাফি, রিলিফ প্রিন্টিং, উড কাট, লিনো কাট, ইন্টেগলিও প্রিন্টিং, লেটার প্রেস এবং কম্পিউটার জেনারেটেড ইমেজ প্রিন্টিংয়ের উপর দক্ষ হতে হবে।
  • সার্ফেস ইমেজ, প্লাস্টিক, মেটাল, গ্লাস, টেক্সটাইল, কাঠ ও পত্রিকা দ্বারা ক্রাফট ইমেজিং করার দক্ষতা থাকতে হবে।
  • অন্য কোন কোম্পানিতে মাস্টার প্রিন্টার হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • ক্যাটালগ, টিশার্ট, অ্যাড সাইন তৈরি করায় পারদর্শী হতে হবে।
  • পোস্টার ও ব্যানারে সিল্ক স্ক্রিন প্রিন্টিংয়ের উপর দক্ষ হতে হবে।
  • বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন ও আর্ট মেকিং সফটওয়্যার ও ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনে পারদর্শী হতে হবে।

এসব ছাড়াও, আর্ট ও ডিজাইন খাতে আইটিতে ক্যারিয়ার গড়ার অনেক সুযোগ রয়েছে। আর্ট থেরাপিস্ট, কনজারভেটর, গ্লাস ডিজাইনার, ওয়েব ডিজাইনার, অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ম্যানেজার, প্রোডাক্ট ডিজাইনারসহ আরো অনেক ধরনের পেশায় নিয়োজিত হওয়া সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

চ্যারিটি খাতের আইটিতে ক্যারিয়ার গড়ুন

যেভাবে একজন ফরেনসিক এক্সপার্ট হিসেবে ক্যারিয়ার গড়বেন