Source: https://publicfigure.com
in ,

২০১৮ সালের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তিগণ

পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তিদের সম্পত্তির হিসেব রাখতে হয় সবাইকেই। কারণ পৃথিবীতে ঘটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রেই তাদের হাত আছে। নিচে পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ২৫ জন ব্যাক্তির নাম এবং তাদের সম্পত্তির পরিমান সম্পর্কে বর্ণনা দেয়া হলো। এই বর্ণনার সূত্র ফোর্বস!

২৫। লি শাউ কি

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৩২.৬ বিলিয়ন ডলার। উনি একটি প্রোপ্রার্টি ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি “সান হুং কাই” এর কো ফাউন্ডার।

২৪। লি কা শিং

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৩৪.৯ বিলিয়ন ডলার। উনি এশিয়া মহাদেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যাবসায়ীদের মধ্যে অন্যতম। উনি বর্তমানে দুটো কোম্পানি “সিকে হাটচিসন হোল্ডিংস” এবং “সিকে এসেট হোল্ডিংস” এর চেয়ারম্যান।

২৩। হুই কা ইয়ান

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৩৫.৫ বিলিয়ন ডলার। উনি হংকং এর রিয়েল এস্টেট কোম্পানি “চায়না এভারগ্রেন্ড গ্রুপ অফ সেনজেন” এর বর্তমান চেয়ারম্যান।

২২। মুকেশ আম্বানী

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৩৯.৬ বিলিয়ন ডলার। উনি ভারতের ব্যবসায়ী গোষ্ঠির প্রধান। বর্তমানে তিনি “রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিস লিমিটেড” এর চেয়ারম্যান, ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং সবচেয়ে বেশি শেয়ার হোল্ডার। মুকেশ আম্বানী প্রত্যেক বছরেই এশিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তিদের লিস্টে থাকলেও, ২০১৮ সালে উনি সারা পৃথিবীর সবচেয়ে ধনীদের লিস্টে চলে এসেছেন।

২১। স্টিভ বালমার

মোট সম্পত্তির পরিমাণঃ ৪০ বিলিয়ন ডলার। উনি বর্তমানে এনবিএ এর “লস এঞ্জেলস ক্লিপারস” এর মালিক এবং মাইক্রোসফট এর সাবেক সিইও।

২০। শেলডল এডেলসন

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৪০.১ বিলিয়ন ডলার। শেলডন আমেরিকার অন্যতম একজন ব্যবসায়ী, ইনভেস্টর এবং লোক হিতৈষী ব্যাক্তি। উনি বর্তমানে “লাস ভেগাস সেন্ডস কোর্পোরেশন” এর ফাউন্ডার, চেয়ারম্যান এবং সিইও।

১৯। এলিস ওয়ালটন

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৪১.৬ বিলিয়ন ডলারউনার পিতা হচ্ছেন স্যাম ওয়ালটন এবং উনি “ওয়ালমার্ট ফরচুন” এর উত্তরাধিকারী। উনি “লামা” নামে একটি কোম্পানির ফাউন্ডার। বর্তমানে “লামা” বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

১৮। এস রবসন ওয়ালটন

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৪১.৮ বিলিয়ন ডলার। উনার পিতা হচ্ছেন স্যাম ওয়ালটন এবং উনি “ওয়ালমার্ট ফরচুন” এর চেয়ারম্যান ছিলেন ২০১৫ সাল পর্যন্ত।

১৭। জিম ওয়ালটন

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৪১.৯ বিলিয়ন ডলার। উনার পিতা হচ্ছেন স্যাম ওয়ালটন। উনি “ওয়ালমার্ট ফরচুন” এর বোর্ড অফ ডিরেক্টরিতে ছিলেন এবং বর্তমানে উনার কোম্পানি “আরভেস্ট ব্যাংক” এর সিইও।

১৬। জ্যাক মা

মোট সম্পত্তির পরিমাণঃ ৪২.২ বিলিয়ন ডলার। উনি “আলিবাবা” প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং উনি বেশ কয়েক বছর ধরেই এশিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তিদের লিস্টে ছিলেন। এই প্রথমবারের মতো উনি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তিদের লিস্টে আছেন।

১৫। ফ্র্যাংকোইজি বেটেন কোর্ট মেয়েরস

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৪৪.৫ বিলিয়ন ডলার। ২০১৭ সালে যখন উনার মা লিলিয়েন বেটেঙ্কোর্ট মৃত্যবরন করেন তখন তিনি “লোরিয়েল” কোম্পানির উত্তরাধিকারী হয়ে যান এবং বর্তমানে তিনি “লোরিয়েল” কোম্পানিতে চেয়ার উইম্যান হিসেবে আছেন।

১৪। সার্গেই ব্রিন

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৪৯.৬ বিলিয়ন ডলার। সার্গেই ব্রিন এবং ল্যারি পেইজ মিলে ১৯৯৮ সালের দিকে গুগল আবিষ্কার করেন। সার্গেই ব্রিন পৃথিবীর সবচেয় প্রভাশালী ব্যাক্তিদের মধ্যে অন্যতম।

১৩। মা হাউটেং

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৫০.৯ বিলিয়ন ডলার। তিনি চায়নার অনেক বিখ্যাত একজন ব্যাবসায়ী, ইঞ্জিনিয়ার, ইনভেস্টর, লোক হিতৈষী ব্যাক্তি, ইন্টারনেট এবং টেকনোলজি উদ্যোক্তা। তার প্রতিষ্ঠিত কোম্পানি “টেন্সেন্ট” চায়নার অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি কোম্পানি।

১২। মাইকেল ব্লুমবার্গ

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৫২.১ বিলিয়ন ডলার। তিনি আমেরিকান উদ্যোক্তা এবং রাজনীতিবিদ। তিনি ফিনান্সিয়াল কোম্পানি “ব্লুমবার্গ এলপি” এর প্রতিষ্ঠাতা। তিনি গত বছর নবম ধনী ব্যাক্তি ছিলেন। কিন্তু কিছু কারণে এই বছর কয়েক বিলিয়ন ডলার ক্ষতি পূরন দেয়ার কারণে তিনি বার’তে এসে পৌঁছেছেন।

১১। ল্যারি পেইজ

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৫৩.৫ বিলিয়ন ডলার। তিনি গুগলের কো ফাউন্ডার। সার্গেই ব্রিন এবং ল্যারি পেইজ মিলে ১৯৯৮ সালের দিকে গুগল আবিষ্কার করেন।

১০। ডেভিড কোচ

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৬১.৮ বিলিয়ন ডলার। তিনি চার্লস কোচের ভাই এবং “কোচ ইন্ডাস্ট্রিস” এর ভাইস প্রেসিডেন্ট। “কোচ ইন্ডাস্ট্রিস” এ তার শেয়ার হচ্ছে ৪২ শতাংশ।

৯। চার্লস কোচ

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৬১.৮ বিলিয়ন ডলার। তিনি আমেরিকান বিখ্যাত লোক হিতৈষী ব্যক্তি এবং ব্যাবসায়ী। তিনি “কোচ ইন্ডাস্ট্রিস” এর কো ফাউন্ডার এবং সিইও।

৮। ল্যারি এলিসন

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৬৪.১ বিলিয়ন ডলার। তিনি একটি টেক কোম্পানি “ওরাকল কর্পোরেশন” এর কো ফাউন্ডার। ২০১৪ সালে তিনি এই কোম্পানির সাবেক সিইও ছিলেন।

৭। আমানিসিও ওরতেগা

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৭০.৫ বিলিয়ন ডলার। তিনি একজন স্প্যানিশ উদ্যোক্তা এবং “ইন্ডিটেক্স ফ্যাশন গ্রুপ” এর ফাউন্ডার। “ইন্ডিটেক্স” কিছুদিন পূর্বে “জারা” নামক আরেকটি ক্লোথিং কোম্পানি ক্রয় করে যেটা বর্তমানে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ক্লোথিং চেইন।

৬। কার্লোস স্লিম হেলু

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৭০.৪৯ বিলিয়ন ডলার। তিনি একজন মেক্সিকান ব্যবসায়ী এবং ইনভেস্টর। তিনি “গ্রুপ কারসো” নামক একটি কোম্পানির ফাউণ্ডার।

৫। মার্ক জাকারবার্গ

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৭৪.৬ বিলিয়ন ডলার। তিনি “ফেসবুক” এর প্রতিষ্ঠাতা। তিনি একইসাথে একজন বিখ্যাত লোক হিতৈষি ব্যক্তি এবং টেক উদ্যোক্তা।

৪। বার্নার্ড আর্নল্ট

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৭৫.৭ বিলিয়ন ডলার। তিনি “লুইস ভিটন মোয়েট হেনেসি” নামক একটি কোম্পানির সিইও। তিনি ২০১৭ সাল থেকে বেশ দ্রুতগতিতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন এবং খুব দ্রুতই তিনি ২০১৮ এর প্রথম পাঁচজন ধনী ব্যাক্তির তালিকায় নাম লেখিয়েছেন।

৩। ওয়ারেন বাফেট

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৯১.৩ বিলিয়ন ডলার। তিনি আমেরিকান ইনভেস্টর এবং একজন উদ্যোক্তা। তিনি “বার্কশায়ার হাথাও্যে” এর সিইও।

২। বিল গেটস

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ৯২.২ বিলিয়ন ডলার। তিনি “মাইক্রোসফট” এর প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ১৯৭৫ সালে পল এলেনের সাথে মিলে মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠা করেন এবং এটি পৃথিবীর সবচেয়ে বিখ্যাত টেক কোম্পানি।

১। জেফ বেজস

মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ১৩০.৫ বিলিয়ন ডলার। তিনি “অ্যামাজন” এর প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ২০১৭ সাল থেকে ২০১৮ সালে হঠাত করে খুব দ্রুতগতিতে ৪০ বিলিয়ন ডলার তার নিজের একাউন্টে যুক্ত করেন এবং অ্যামাজনের বিশেষ কিছু মুভের কারনেই তিনি এখন দুনিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তি, যেখানে তার সবচেয়ে বড় কম্পিটিটর “বিল গেটস” তার থেকে সম্পত্তির দিক থেকে প্রায় ৪০ বিলিয়ন ডলার পিছিয়ে আছেন। তিনি ধনী ব্যাক্তিদের ইতিহাসে প্রথম ব্যাক্তি যিনি ১০০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গিয়েছেন।

ধন্যবাদ! ভালো থাকবেন, ভালো রাখবেন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

লিস্টভার্সে আর্টিকেল লিখে আয় করুন

কম্পিউটারের সিস্টেম কীভাবে পরিষ্কার রাখবেন