Source: https://www.businessnewsdaily.com/7893-steps-before-business-plan.html
in ,

যে সকল কারণে মার্কেট রিসার্চ ব্যবসার জন্য জরুরী

বেশিরভাগ ব্যবসার ক্ষেত্রে দেখা যায়, আমরা ব্যবসার আইডিয়া তৈরি করেই পণ্য বা সেবা বিক্রি করা শুরু করে দিই। কিন্তু মার্কেট রিসার্চ নিয়ে একটিবারের জন্যও ভাবি না। যারা মার্কেট রিসার্চ করার ব্যাপারটা নিয়ে ভাবেন, তারাও সবার শেষে, সকল ঝামেলা মিটিয়ে তারপর করে থাকেন। কিন্তু মার্কেট রিসার্চ যেকোনো ব্যবসার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ব্যাপার। তাই আজকের আলোচনার বিষয়বস্তু হচ্ছে, মার্কেট রিসার্চ কেন যেকোনো ব্যবসার জন্য জরুরী।

মার্কেট রিসার্চ কী?

মার্কেটি রিসার্চ কোনো নির্দিষ্ট পদ্ধতি বা কাজ নয়। মার্কেট রিসার্চ হচ্ছে কোনো ব্যবসা শুরু করার পূর্বে সেই ব্যবসার টার্গেট গ্রাহকসংখ্যা সম্পর্কে অবগত হওয়া।

ধরুন, বিয়ের ফটোগ্রাফি সার্ভিস নিয়ে আপনি একটি ব্যবসা শুরু করতে যাচ্ছেন। সেক্ষেত্রে আপনার আত্মীয়স্বজনের মধ্যে যাদের বিয়ে হয়ে গিয়েছে, তাদের সাথে কথা বলুন। তারা তাদের বিয়েতে কেমন ফটোগ্রাফি সার্ভিস চেয়েছিলেন, কত টাকা খরচ হয়েছে, কীভাবে ফটোগ্রাফি সার্ভিস বাছাই করেছিলেন ইত্যাদি সম্পর্কে ধারণা নিন। এটাই হচ্ছে মার্কেট রিসার্চ।

আবার ধরা যাক, আপনি একটি অনলাইন গিফট শপ শুরু করতে যাচ্ছেন। সেক্ষেত্রে আপনার আশেপাশে যত গিফটের দোকান আছে সবগুলোতে খোঁজখবর নিন। ফেসবুকে অনলাইন গিফট শপগুলোর পেইজ, ভিডিও, গ্রুপ, গ্রাহক সম্পর্কে ধারণা নিন। এটাই হচ্ছে আপনার জন্য মার্কেট রিসার্চ। সুতরাং মার্কেট রিসার্চ হচ্ছে এমন কিছু পূর্ব পরিকল্পনা ও গবেষণা, যার মাধ্যমে একটি প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানোর পূর্বে এর জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

মার্কেট রিসার্চের গুরুত্ব

মার্কেট রিসার্চ শুধুমাত্র একটি গবেষণাই নয়, মার্কেট রিসার্চ যেকোনো ব্যবসার ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করে। শর্টি অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত লেখক ডেন জ্যারিলা মার্কেট রিসার্চের গুরুত্ব বোঝাতে গিয়ে বলেন,

মার্কেট রিসার্চ ছাড়া মার্কেটিং করা মানে চোখ বন্ধ করে গাড়ি চালানো।

মার্কেটি রিসার্চের ফলে টার্গেট গ্রাহক চেনা যায়

মার্কেটি রিসার্চ করার পর আপনি কাদের কাছে আপনার পণ্য বা সেবা পৌছাবেন সেটা সম্পর্কে জেনে যাবেন। অর্থাৎ, আপনার টার্গেট গ্রাহক সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যাবেন। আপনার গ্রাহক সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে পারলে  অনেক সহজেই তাদের চাহিদামতো পণ্য বা সেবা পৌঁছে দিতে পারবেন।

মার্কেট রিসার্চের ফলে আপনি যখন আপনার টার্গেট গ্রাহকদের পছন্দ অপছন্দ, তারা কখন কী খান, কী করেন, কোথা থেকে পণ্য ক্রয় করেন, কীভাবে ক্রয় করেন, এসব সম্পর্কে জেনে যাবেন। এতে তাদের চাহিদামতো পণ্য প্রদান করাটা আপনার জন্য সুবিধাজনক হয়ে যাবে। তারা যদি নতুন কোনো পণ্য বা সেবা গ্রহণ করতে চান, তাহলে তাদের চাহিদার উপর ভিত্তি করে আপনিই সেই পণ্য বা সেবা তাদের কাছে পৌঁছে দিতে পারেন। এতে গ্রাহকদের সাথে আপনার বন্ধন দৃঢ় হবে ও গ্রাহক বৃদ্ধির সম্ভাবনাও বাড়বে।

মার্কেট রিসার্চের ফলে ব্যবসায় ঝুঁকির সম্ভাবনা কমে যায়

ব্যুরো অব লেবার স্ট্যাটিসটিকসের মতে, প্রায় অর্ধেকের চেয়ে বেশি ব্যবসায়ী পাঁচ বছর পর্যন্ত বাজার ধরে রাখতে পারেন না।  ব্যবসার বাজারে টিকিয়ে রাখতে হলে গ্রাহক এবং বিক্রি দুইই বৃদ্ধি করতে হবে। আর সেটা করার জন্য মার্কেট রিসার্চ খুবই কার্যকরী।

মার্কেট রিসার্চের মাধ্যমে আপনার কোনো টার্গেট গ্রাহককে দিয়ে নতুন পণ্য বা সেবার পরীক্ষা করাতে পারেন। ধরুন, আপনি একটি হোম ডেকোরেশনের ব্যবসা দিতে চাইলেন। সেক্ষেত্রে আপনার দোকানের জন্য নতুন কিছু সোফা নিয়ে আসতে হবে। এই সোফাগুলো বিক্রির পূর্বে আপনার টার্গেট গ্রাহকদের দিয়ে যদি পরীক্ষা করিয়ে নেন, তাহলে কোনো সমস্যা কিংবা খুঁত থাকলে সেগুলো বের হয়ে আসবে।

আমরা অনেক ক্ষেত্রেই হয়তো খেয়াল করি না, আমাদের ব্যবসায় রিটার্ন গ্রাহকের সংখ্যা যত বেশি হবে, ব্যবসার ততো দ্রুত প্রসার হবে। যত বড় বড় কোম্পানি বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে, তারা নতুন গ্রাহক তৈরির চেয়ে পুরোনো গ্রাহক ধরে রাখায় বিশ্বাস করে। তাই, ‘গ্রাহক আপনার দোকানে আবার ফিরে আসবে কেন’ এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে বের করুন।

মার্কেট রিসার্চের ফলে মার্কেটিং প্ল্যান ও পদ্ধতি সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায়

যেকোনো ব্যবসার জন্য মার্কেটিং প্ল্যান ও পদ্ধতি হচ্ছে সবচেয়ে জরুরি বিষয়। কারণ সঠিক মার্কেটিং প্ল্যান ছাড়া  ব্যবসায় উন্নতি লাভ করা সম্ভব নয়। সঠিক মার্কেটিং প্ল্যান তৈরির জন্য উপযুক্ত মার্কেটিং ম্যাটেরিয়ালের দরকার পড়ে। মার্কেটিং প্ল্যান তৈরির পূর্বে মার্কেট রিসার্চ করা জরুরী। কারণ  মার্কেট রিসার্চের মাধ্যমেই আপনি জানতে পারবেন, আপনার প্রতিযোগী কোম্পানি কোন ধরনের মার্কেটিং প্ল্যান করছে, কীভাবে সামনে এগুচ্ছে, কোথায় এবং কখন মার্কেটিং প্ল্যান করেছে এবং কী কী মার্কেটিং ম্যাটেরিয়াল ব্যবহার করেছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং ও অফলাইন মার্কেটিংয়ের কোন কোন পদ্ধতি অবলম্বন করে আপনার প্রতিযোগী কোম্পানি বাজারে টিকে আছে,  সে সম্পর্কেও মার্কেট রিসার্চ করে জানতে পারবেন। এছাড়া আপনার পণ্য বা সেবার মার্কেটিং কোথায় ও কীভাবে করতে হবে, সে সম্পর্কে সুষ্ঠু ধারনা পেয়ে যাবেন।

মার্কেট রিসার্চের ফলে প্রতিযোগীদের থেকে সামনে এগিয়ে থাকা যায়

মার্কেট রিসার্চের ফলে প্রতিযোগীদের অবস্থান জানতে পারবেন। এছাড়াও তাদের মার্কেটিং প্ল্যান, মার্কেটিং মেথড ও মার্কেটিং ম্যাটেরিয়াল সম্পর্কে ধারনা পাবেন। যার ফলে তাদের চেয়ে আগেভাগেই আপনি গ্রাহকদের কাছে  পৌঁছাতে পারবেন। আপনার প্রতিযোগীদের ওপর যারা  অসন্তুষ্ট, এমন  গ্রাহকদের উপরও রিসার্চ করুন। তারা কেন অসন্তুষ্ট সে সম্পর্কে ধারণা নিন। অসন্তুষ্ট গ্রাহকদের মতামত পর্যালোচনা করে আপনার পণ্যের গুণগত মান বৃদ্ধি করতে পারবেন এবং দ্রুত টার্গেট গ্রাহকদের কাছে পৌঁছাতে পারবেন।

মার্কেট রিসার্চের ফলে ব্যবসায়িক সিদ্ধান্ত নেয়াটা সহজ হয়ে যায়

সঠিক সিদ্ধান্ত একটি ব্যবসার জন্য আশীর্বাদস্বরুপ। কারণ একটি ভুল সিদ্ধান্তের কারণে লক্ষ কোটি টাকার ব্যবসায় পতন ঘটতে পারে। তাই সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে ঝুঁকি নেয়াটা উচিত নয়। যতটুকু সম্ভব নিশ্চিত হয়েই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আবার, একটি ব্যবসায় লাভ ক্ষতি সবই নির্ভর করে গ্রাহক ও বিক্রির উপর। কিন্তু একটি ব্যবসা শুরু করার পূর্বেই গ্রাহক বা পণ্য বিক্রি সম্পর্কে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়া কতটুকু সম্ভব?

আসলে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য গ্রাহকের কিংবা পণ্য বিক্রি করার দরকার পড়ে না। এর জন্য প্রয়োজন হয় মার্কেট রিসার্চের। মার্কেট রিসার্চের মাধ্যমেই গ্রাহক ও পণ্য বিক্রি সংক্রান্ত যেকোনো সিদ্ধান্ত নেয়াটা সহজ হয়ে যায়।

নিজের অনলাইন দোকান যেভাবে শুরু করবেন

ক্যারিয়ার গড়ুন ফটোগ্রাফিতে